ধূমপানে করোনা আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশী By WHO

Smoking is more likely to be infected with the coronary virus by WHO

আপনি কি ধূপমান করেন? তাহলে সাবধান ! কারণ ধূমপানে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশী।

আরো খবর পড়ুন ঃ Breaking News প্রথম করোনা ভাইরাসে মৃত্যু কলকাতায়

একদিকে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ছে এই করোনা ভাইরাস। ফলে প্রতিটি দেশে আক্রান্তের সংখ্যায় বেড়ে চলেছে প্রতিদিন। কোনো না কোনো দেশে প্রতিদিন মারা যাচ্ছেন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত মানুষেরা।

একদিকে যুদ্ধকালীন পরিস্থিতিতে চলছে করোনা ভাইরাসের প্রতিরোধে খোঁজ। ঠিক এমন সময় আর একটি আতঙ্কের কথা জানালেন WHO ( World Heath organization ).

সংস্থাটি থেকে জানানো হয়েছে যে, ধূমপানে আরো বেড়ে যেতে পারে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুকি বা মাত্রা।

23.03.2020 তারিখে কলকাতায় মারা গেছেন প্রথম করোনা আক্রান্ত কলকাতাবাসী। বিশ্বে মোট করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয় মারা গেছেন কমপক্ষে 12 হাজার 838 জন। আর এইমাত্রা ক্রমশ বেড়েই চলেছে দিন দিন।

Smoking is more likely to be infected with the coronary virus by WHO

একটি গবেষনায় জানা গেছে করোনা ভাইরাসে প্রাণ গেছে যাদের তারা বেশির ভাগ পুরুষ তথা ধূমপানকারী। অর্থাৎ মহিলা ও শিশুদের তুলনায় পুরুষদের করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা ও মৃতের হার তুলনামূলক ভাবে বেশী।

চিকিৎসকরা তাদের গবেষণায় যে সকল তথ্য খুঁজে পেয়েছেন তা হল, বাইরে ঘুরে বেরানো এবং ঘণ ঘণ ধূমপান করার ফলে ফুসফুসে এই ধরণের ভাইরাসের সংক্রামন বেশী পরিমানে হয়ে থাকে। যারা ধূমপান করেন তাদের ফুসফুস ক্রমশ দূর্বল হতে থাকে এবং সেই দূর্বল ফুসফুসে ক্রমশ বাসা বাধতে থাকে করোনা ভাইরাস। এবং পরিসংখ্যা বলছে ধূমপানকারীদের আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যাই বেশি।

সুতরাং নিজেকে বাঁচাতে নিজের পরিবার কে রক্ষা করতে কি পদক্ষেপ নেবেন আপনি অর্থাৎ যারা নিয়মিত ধূমপান করেন তারা। বড়ো প্রশ্নের মুখে আপনার ধূমপানের অভ্যাস।

এর উত্তর আপনাকেই খুজে বার করতে হবে।

করোনা ভাইরাসকে মোকাবিলা করতে সারাবিশ্ব, সারাদেশ এবং সারা রাজ্য একসাথে কোমর বেধে নেমেছে।

দলমত নির্বিশেষে এগিয়ে এসেছে সকল রাজনৈতিক দল। কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সর্তকতা মূলক পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। আগামী 27.03.2020 পর্যন্ত সারা দেশে লকডাউন থাকার সিন্ধান্ত নিয়েছেন সরকার।

বন্ধ থাকছে যানবাহন পরিষেবা, অফিস, আদালত ইত্যাদি। স্কুল কলেজ আগে থেকেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবে জরুরী পরিষেবা ও দৈনন্দিন পরিষেবা সচল রাখার নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য সরকার। সকল মানুষদের একসাথে সংঘবদ্ধ হতে মানা করা হয়েছে।

একদিকে আতঙ্ক আর একদিক সর্তকতা এক নতুন অভিজ্ঞতার সম্মুখীন থাকছে গোটা বিশ্বের মানুষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x
Translate »