বেতন বাড়বে বেসরকারি কর্মচারীদের ! লকডাউনে ঘোষণা অর্থমন্ত্রীর

বেতন বাড়বে বেসরকারি কর্মচারীদের। লকডাউনের মধ্যে সুখবর বলা চলে। আগামী তিন মাস একটু বেশি বেতন হাতে পেতে পারে বেসরকারি কর্মচারীরা। 13ই মে আত্মনির্ভর প্রকল্প নিয়ে প্রথম দফার একটি সাংবাদিক বৈঠক করেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ । সেই সময় তিনি উল্তলেখ করেন কিছু শর্ত সাপেক্ষে বেসরকারী কর্মচারীদের বেতন বাড়তে পারে।

কোনও কর্মীচারী বেতন থেকে যে পরিমাণ টাকা কাটা হত প্রভিডেন্ট ফান্ডের জন্য, আগামী তিন মাস তা কম কাটা হবে। ফলে হাতে যে পরিমাণ বেতন পান বেসরকারি কর্মীচারী , এবার তিন মাস একটু বেশি পাবেন।

বেতন বাড়বে বেসরকারি কর্মচারীদের

সকল বেসরকারী কর্মচারীরা ভালো করেই জানেন যে তাদের বেতনের কিছু ভাগ থাকে যেমন বেসিক, HRA ইত্যাদি। আর এই প্রভিডেন্ট ফান্ডের জন্য যে টাকা কাটা হয় তা বেসিক সেলারির উপর নির্ভর করে, যে কার কত বেসিক সেলারি আছে সেই মত প্রভিডেন্ট ফান্ডের জন্য টাকা কেটে তা জমা রাখা হয়।

Read More অশ্বডিম্ব, কেন্দ্রের আর্থিক প্যাকেজ কে কেন কটাক্ষ মমতার

বৈঠকে নির্মলা সীতারমণ জানিয়েছেন, বেসরকারি ক্ষেত্রে ইপিএফে ১২ শতাংশের বদলে ১০ শতাংশ করে কাটা হবে। এতে সরকারের পক্ষ থেকে ১০ শতাংশ ও কোম্পানিকে ১০ শতাংশ অর্থ দিতে হবে। এরফলে কিছুটা হলেও বোঝা কমবে কেন্দ্রীয় কোষাগারের। আগামী তিন মাস এই ইপিএফ কম জমা দেওয়ার জন্য তাদের কাছে ৬৭৫০ কোটি টাকার নগদ হাতে থাকবে। তবে সরকারি ক্ষেত্রে ১২ শতাংশই পিএফ কাটা হবে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী।

যদি পিএফ কম কাটা হয় তাহলে কর্মীরা একটু বেশি বেতন হাতে পাবেন ও বেসরকারি সংস্থাগুলিরও একটু সুবিধা হবে। তবে প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ যোজনার আওতাভুক্ত কর্মীদের ওপর এই নিয়ম সক্রিয় হবে না। এই ঘোষণা যদি বাস্তবে হয় তাহলে ৬.৫ লক্ষ সংস্থা উপকৃত হবে বলে মনে করা হচ্ছে। যার আওতায় রয়েছেন ৪.৩ কোটি কর্মী। বুধবার 13ই মে সাংবাদিক বৈঠকে অর্থমন্ত্রী নির্মলা আরও ঘোষণা করেন, ২০১৯-২০ এর জন্যে আয়কর রিটার্নের জন্যে সময়সীমা বাড়িয়ে করা হয়েছে ৩০ নভেম্বর 2020 পর্যন্ত।

Read Free Astrology Magazine Click Here

একই সঙ্গে তিনি ঘোষণা করেন যে, টিডিএস 25 শতাংশ কম কাটা হবে। এর ফলে 50 হাজার কোটি টাকা নগদ আসবে। এদিকে রিজার্ভ ব্যাংকের সঙ্গে আলোচনা করেই এবার 12 লক্ষ কোটি টাকা ঋণ নিতে হবে বলে মনে করা হচ্ছে । কেন্দ্র জানিয়েছে, চলতি আর্থিক বছরের প্রথম ছয় মাসেই ছয় লক্ষ কোটি টাকা ধার করতে হবে। পাশাপাশি এর ফলে রাজকোষের ঘাটতি যেটার লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল three.5 শতাংশ সেটাও একই রকম ভাবে বাড়বে বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল।

[jetpack_subscription_form show_only_email_and_button=”true” custom_background_button_color=”undefined” custom_text_button_color=”undefined” submit_button_text=”Subscribe” submit_button_classes=”undefined” show_subscribers_total=”true” ]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x
Translate »