মুকুল রায় এর হাত ধরেই বিজেপিতে তৃণমূল কর্মীরা

মুকুল রায় এর হাত ধরেই বিজেপিতে যোগদান শুরু করেছে তৃণমূল কর্মীরা পড়ুন বিস্তারিত।

প্রতিবেদন Aishwarya Chakraborty : আসছে বছর বাংলায় বিধানসভা নির্বাচন। আর এর আগেই সবাই নিজেদের সংগঠনকে শক্তিশালী করে তুলছে। ভোট কৌশলী প্রশান্ত কিশোরের হাতে ধরে একের পর এক বিজেপির শক্ত ঘাঁটিতে থাবা বসাচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস।


এর মধ্যেই একাধিক হেভিওয়েট বিজেপি নেতৃত্ব কে নিজের করেছে শাসকদল। সেই তালিকায় আছেন এক বিধায়কও আছেন। আর গোষ্ঠীর অভ্যন্তরীণ ঝামেলায় নাজেহাল বিজেপি। আর সেই সুযোগকে কাজে লাগাচ্ছে শাসকদল। কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীর কথায় মুকুল রায়কে পাশে রেখেই বাংলায় বিজেপি দল গড়বে।

মুকুল রায় এর হাত এর পরেই আবার চাঙ্গা বিজেপি শিবির। নতুন দমে মুকুল রায়ও। কৈলাশের মন্তব্যের পরে তিনি ছুটে গেলেন জঙ্গলমহল। আগের লোকসভা নির্বাচনের পর সেখানে নিজেদের গোড়া কিছুটা হলেও শক্ত করে বিজেপি। যদিও সেখানে এখন তৃণমূল থাবা বসাচ্ছে। পুরুলিয়া ও বাঁকুড়া সহ বিভিন্ন অংশে বিজেপির ভাঙন সুস্পষ্ট। এবার সেখান থেকেই তৃণমূলে ভাঙন ধরলেন মুকুল। বিজেপির সোশ্যাল মিডিয়ায় এই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। বিজেপির তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ” ঝাড়গ্রাম সাংগঠনিক জেলায় তৃণমূল ছেড়ে ৫১০ টি পরিবার ভারতীয় জনতা পার্টির পতাকা হাতে তুলে নিলেন।

মুকুল রায় এর হাত ধরেই বিজেপিতে তৃণমূল কর্মীরা

কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক কৈলাশ বিজয়বর্গীয় জি, কেন্দ্রীয় নেতা মুকুল রায় ও সাংসদ কুনাল হেমব্রম ম নবাগত সদস্যদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দিলেন ।বিধানসভা নির্বাচনের আগে বাংলা জুড়ে বিজেপির ‘আমার পরিবার-বিজেপি পরিবার’ কর্মসূচি চলছে। সেই অনুযায়ী দল ভাঙছে বিজেপি । শাসকদলের পাল্টা হিসেবে বাংলায় বিভিন্ন জেলায় দল ভাঙছে বিজেপি।

গ্রেফতার হলেন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ

তৃণমূল ছাড়াও সিপিএম ও কংগ্রেসেও থাবা বসিয়েছে বিজেপি। এই প্রসঙ্গে উল্লেখ্য যে, বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ নন,মুকুল রায়ের ওপরেই ভরসা রেখেছেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা তথা দলের পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্বপ্রাপ্ত পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয় বাংলা দখলের জন্য। গত শুক্রবার ‘গনতন্ত্র বাঁচাও’ মঞ্চ থেকে বিজয়বর্গীয় বলেন,” মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে মুখ্যমন্ত্রী করেছিলেন মুকুল রায়। মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে সরাবেন মুকুল রায়ই।”

মুকুল রায় এর হাত ধরেই বিজেপিতে তৃণমূল কর্মীরা


ভাবপ্রবণ বাঙালির ভাবাবেগ বুঝে চলা দক্ষ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব হলেন মুকুল রায়। তাকে তৃণমূল চাণক্য বলা হত । তবে বিজেপিকে যোগদানের জন্য সেই মর্যাদা খুইয়েছেন তিনি। তবে এদিন বিজেপিতেই তাকে চাণক্যের মর্যাদা দিলেন কৈলাশ বিজয়বর্গীয়। এদিন তার কথায়, “মুকুল রায় তৃণমূল ছাড়তেই তার বিরুদ্ধে ৫০টি মামার দায়ের করা হয়েছে।ভুললে চলবে না তিনি বাংলার রাজনীতির চাণক্য। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে মুখ্যমন্ত্রী করেছিলেন মুকুল রায়। মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে সরাবেন মুকুল রায়ই।”

রাহু কেতুর গোচর ও আপনার রাশিফল জেনে নিন
রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে কৈলাশ বিজয়বর্গীয় এর বক্তব্য যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ। আগামী বিধানসভা নির্বাচনের জয়লাভের জন্য মুকুল রায়ের ওপরেই নির্ভর করছে দল, এদিন তা বিজয়বর্গীয় এর কথায় স্পষ্ট। আর দিলীপ ঘোষের কথায় একুশে বিজেপিকে বাংলায় আনতে তিনি একাই যথেষ্ট তখন বিজয়বর্গীয় এর কথা বেশ তাৎপর্যপূর্ণ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x
Translate »