করোনা ত্রাণ ? পিছিয়ে নেই বামেরাও 10 লক্ষ টাকা

করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় সকল রাজনৈতিক দল একসাথে হয়ে লড়াই চালাচ্ছে।

করোনা ত্রাণ – নবান্নে সর্বদলীয় বৈঠকে উপস্থিত সকল রাজনৈতিক দলের নেতারা জানান তার যে কোনো পরিস্থিতিতে রাজ্য সরকারের পাশে থেকে এই মহামারির মোকাবিলায় সকল ধরণের সাহায্য করবেন।

আরো পড়ুন ১০ কোটি মানুষের অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠাবে সরকার, এই সপ্তাহে হতে পারে বড় ঘোষণা

এমনটাই হওয়া উচিত। যে বিপদের সময় রাজনীতি ভুলে, ভেদাভেদ ভুলে সকলে একসাথে একজোট হয়ে চলা। এরই নাম ভারত। আমাদের দেশ। আমরা গর্বিত।

ইতি মধ্যে অনান্য রাজনৈতিক দলের পক্ষ থেকে বিভিন্ন আর্থিক অনুদান দেওয়া শুরু হয়েছে। অন্যদিকে মাননীয়া মূখ্যমন্ত্রী করোনা ভাইরাস মোকবিলা করার জন্য বিভিন্ন পরিকাঠামো সঠিক ভাবে পরিচালনা করার জন্য আর্থিক অনুদানের প্রয়োজনে একরি ত্রাণ তহবিল তৈরী করেছেন।

পিছিয়ে নেই বাম দলও।

করোনার চিকিত্সায় জেলার হাসপাতালগুলিতে ১০ লক্ষ টাকা করে অনুদান দেবেন বাম বিধায়করা। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেওয়া চিঠিতে বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী লিখেছেন, বাম বিধায়করা এলাকা উন্নয়ন তহবিল থেকে জেলার সংশ্লিষ্ট হাসপাতালে করোনার চিকিত্সা পরিকাঠামো ও উপকরণের জন্য ন্যূনতম ১০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করবেন। এবিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীর পরামর্শও জানতে চাওয়া হয়েছে।

আরো পড়ুন করোনা মোকাবিলায় রাজ্যের ত্রান তহবিলে এক কোটি টাকা দিল যুব তৃণমূল

সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বর্তমানে বাম শিবিরে থাকা ২৬ জন বিধায়ক মোট ২ কোটি ৬০ লক্ষ টাকা সংশ্লিষ্ট জেলাশাসকদের তহবিলে দেবেন। জেলাশাসকদের কাছে এই মর্মে প্রস্তাব দু’-একদিনের মধ্যেই বিধায়করা পাঠিয়ে দেবেন বলে সুজন চক্রবর্তী জানিয়েছেন। তিনি মুখ্যমন্ত্রীর কাছে করোনা সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্য পরিকাঠামো ও সরঞ্জাম কেনার ক্ষেত্রে এই টাকা ব্যয় করার আর্জি জানিয়েছেন।

আরো পড়ুন ব্রিটেনের Prince Charles করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন

করোনার মোকাবিলায় ইতিমধ্যেই আর্থিক অনুদান দিয়েছেন বিজেপি সাংসদরা। ১.৬ কোটি টাকা দিয়েছেন সুরিন্দর সিং অহলুওয়ালিয়া। হুগলির সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায় সাংসদ তহবিল থেকে দিয়েছেন ১ কোটি। বাঁকুড়ার সাংসদ সুভাষ সরকার ১ কোটি টাকা দিয়েছেন।

Financial Tips on Astrology অর্থলাভের চমৎকারী টোটকা

বালুরঘাটের সাংসদ সুকান্ত মজুমদার ৩০ লক্ষ টাকা ও সৌমিত্র খাঁ ৮০ লক্ষ টাকা। ৫০ লক্ষ টাকা দিয়েছেন পুরুলিয়ার সাংসদ জ্যোতির্ময় মাহাতো। ৫০ লক্ষ টাকা করে দিয়েছেন নিশীথ প্রামাণিক, রাজু বিস্ত, জন বার্লা। সকলেই নিজের এলাকার উন্নয়ন তহবিল থেকে করোনার চিকিত্সায় অনুদান দিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x
Translate »