করোনা ভাইরাস ম্যান মেড , প্রমাণ করবে হুঁশিয়ারি দিল চিনা ভাইরোলজিস্টের

করোনা ভাইরাস ম্যান মেড প্রামণ করবে চিনা ভাইরোলজিস্ট জানুন বিস্তারিত।

প্রথম থেকেই চিনের উপর চাপ বাড়ছিল করোনা ভাইরাস মেন-ম্যাড প্রসঙ্গ নিয়ে। বার বার বহু দেশ থেকে দাবি তোলা হয়েছিল এই বিষয় নিয়ে। এবার চিন থেকে নিরুদ্দেশ হয়ে যাওয়া ভাইরোলজিস্ট দাবি করলেন, তিনি প্রমাণ করে দেবেন যে করোনা ভাইরাস ‘ম্যান-মেড।’

করোনা ভাইরাস ম্যান মেড , প্রমাণ করবে হুঁশিয়ারি দিল চিনা ভাইরোলজিস্টের

লি মেং ইয়ান নামে ওই ভাইরোলজিস্ট বলেন, বেজিং করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার অনেক আগেই থেকেই সবকিছু জানত এবং করোনা ভাইরাস নিয়ে মুখ খোলায় প্রাণের ভয়ে হংকং পালিয়ে যেতে হয় ওই ভাইরোলজিস্টকে।

বিজেপি রাজ্য কমিটি তে জায়গা পেয়েই কি সুর বদল বৈশাখী

করোনা ভাইরাস ম্যান মেড

তিনি দাবি করেছেন চিনের ওয়েট মার্কেটই করোনা ভাইরাসের উৎসস্থল। করোনা ভাইরাস হল মানুষ দ্বারা তৈরি, সেই প্রমাণও নাকি তাঁর কাছে আছে এমনি দাবি করেছেন ঐ চিনা ভাইরোলজিস্ট।

করোনা ভাইরাস ম্যান মেড , প্রমাণ করবে হুঁশিয়ারি দিল চিনা ভাইরোলজিস্টের

তাঁর দাবি করোনা ভাইরাস প্রাকৃতিক ভাবে তৈরি হয়নি। তাঁর মতে উহানের ল্যাব থেকেই এসেছে ভাইরাস। তিনি আরও বলেন, তার কাছে যা প্রমাণ এবং তথ্য আছে , তাতে ভাইরোলজির কোনও জ্ঞান না থাকলেও বোঝা সম্ভব হবে সাধারণ মানুষের পক্ষে যে করোনা ভাইরাস ম্যান মেড।

তাঁর সকল তথ্য মুছে ফেলেছে চিনা সরকার। এমনটাই অভিযোগ হংকং ইউনিভার্সিটির ঐ গবেষকের। তিনি সেই সব গবেষকদের মধ্যে অন্যতম যিনি প্রথম দিকে করোনা ভাইরাসের সন্ধান পান ও গবেষণা করতে থাকেন। তাঁর নামে মিথ্যা রটানো হচ্ছে বলে চিনের সরকারের বিরুদ্ধে দাবি তুলেছেন তিনি।

দাবি করা হয়ছিল, চিনের ইউহান ল্যাব থেকে ছড়িয়ে পড়ে এই ঘাতক করোনা ভাইরাস। আমেরিকার সংবাদমাধ্যমের পক্ষ থেকে সামনে আসে হয় সব চাঞ্চল্যকর তথ্য।

উহানের সবজি বাজারকে প্রাথমিক ভাবে করোনা ভাইরাসের আঁতুড়ঘর রূপে ধরা হয়েছিল। মনে করা হয়েছিল যে বাদুড় থেকে ছড়িয়েছে এই ভাইরাস মানুষের মধ্যে। কিন্তু পরবর্তীতে দাবি করা হয়েছে ল্যাবেই তৈরি করা হয়েছে মারণ করোনা ভাইরাস। আর সেখান থেকেই কোনও ভাবে ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ে ক্রমশ সারা বিশ্বে।

জ্যোতিষ ম্যাগাজিন পড়ুন। জেনে নিন রাশিফল ও আপনার সমস্যার সমাধানের উপায়

এর কিছু আগে প্রকাশিত হওয়া এক রিপোর্ট থেকে সামনে আসে নতুন তথ্য। জানা গিয়েছে প্রায় দুই বছর আগেই চিনের মার্কিন দূতাবাসের তরফে এই ইউহান ল্যাবের বায়ো নিরাপত্তার বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে হয়েছিল। কারণ ঐ ল্যাবে মারণ করোনা ভাইরাস এবং সংক্রমণ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে গবেষণা চালানো হচ্ছিল বলে দাবি আমেরিকার। তবে এই খবর সামনে আসাতে আন্তর্জাতিক নিরাপত্তার খাতিরে ফের প্রশ্নের মুখে পড়বে চিন এমনটা নিশ্চিত ভাবে মনে করছেন আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রের বিশেষজ্ঞরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x
Translate »