Corona Test করবে F.E.L.U.D.A. (ফেলুদা) দাবী বিজ্ঞানীর

এবার করোনার রহস্য (Corona Test) ভেদ করবে ফেলুদা। অবাক হলেন, সত্যি সত্যি ফেলুদার (FELUDA) সাহায্য করোনা সংক্রমিত কিনা তা খুঁজে বার করা সম্ভব এমনি দাবি দুই বাঙালি বিজ্ঞানী দেবজ্যোতি চক্রবর্তী এবং পূর্ব মেদিনীপুরের সৌভিক মাইতির।বিস্তারিত পড়ুন।

Corona Test করবে ফেলুদা। তবে এই ফেলুদা আমাদের পরিচিত প্রদোষ মিত্র নয়। এ হলো প্রযুক্তি। যার পুরো নাম FnCas9 Editor Linked Uniform Detection Assay (FELUDA) যা আমাদের এই দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরী। ফেলুদা (FELUDA) এর সাহায্যে কয়েক ঘন্টার মধ্যেই ফল মিলবে বলে দাবি দিল্লির ইনস্টিটিউট অফ জিনোমিক্স অ্যান্ড ইন্টিগ্রেটিভ বায়োলজির দুই বাঙালী বিজ্ঞানী সৌভিক ও দেবজ্যোতির। যা খুবই সহজ সরল একটা মেথর্ড আবিষ্কার করা হয়েছে, যার মাধ্যমে মাত্র দু ঘন্টা সময়ের মধ্যে এটা খুবই সাধারণ একটা পরীক্ষা দ্বারা কেউ করোনা সংক্রামিত কিনা তা জানা সম্ভব হবে। বিদেশী কিটের তুলনায় যা খুবই কম দামি।

তারা দাবী করেছেন, এই পরীক্ষা বা টেস্টটি করতে এই মেশিনটি যে কোনো সাধারণ পেথলোজিক্যাল ল্যাব রেখেও পরীক্ষা করা যাবে।যা কিনা খুবই একটি সাধারণ পদ্ধতি। যার জন্য কোনো প্রশিক্ষণ নেওয়ার প্রয়োজন হবে না।

আরো খবর করোনা মুক্ত দেশ গুলি কি কি জানেন ? যেখানে পৌছায়নি করোনা সংক্রামন

কিভাবে কাজ করবে FnCas9 Editor Linked Uniform Detection Assay (FELUDA) ?

Corona test

এই প্রযুক্তি দুই বাঙালি বিজ্ঞানী দাবি কবির Covid19 ভাইরাসের RNA কে প্রথমে DNA তে বদলানো হবে এর পরে Polymerase Chain Reaction বা PCR যন্ত্রের মাধ্যমে একটি DNA থেকে একাধিক copy DNA এর তৈরি করা হবে। তার সঙ্গে CRISPR-Cas9 বলে ব্যাকটেরিয়া প্রোটিন এর সঙ্গে সংযুক্তি ঘটানো হবে যা Viral DNA কে চিহ্নিত করতে সাহায্য করে এরপরে কাগজের স্ট্রিপে ফেলা হবে সন্দেহভাজন ব্যক্তির লালা রসের নমুনা। স্ট্রিপে প্রথমে একটি দাগ ফুটে উঠবে, বিজ্ঞানের পরিভাষায় কন্ট্রোল লাইন নামে পরিচিত। এই দাগ দেখে বোঝা যায় স্ট্রিপটি ঠিক মতো কাজ করছে। দ্বিতীয় দাগটির নাম Test Line স্ট্রিপে সেই দাগ ফুটে উঠলে বুঝতে হবে, যার নমুনা তিনি করোনা সংক্রমিত।

Crispr-Cas9

দুই বাঙালি বিজ্ঞানী দাবি এই পরীক্ষায় খচর হবে পাঁচশো থেকে ছয়শো টাকা। যেখানে বিদেশী কিটে কয়েক হাজার টাকা খরচ হয় এবং যেখানে বিদেশী কিটে করনা চিহ্নিত করতে একদিন লাগে সেখানে দেশীয় প্রযুক্তির FnCas9 Editor Linked Uniform Detection Assay (FELUDA) এই পরীক্ষা কয়েক ঘন্টায় করা যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।

কিভাবে বাজারে আসবে FnCas9 Editor Linked Uniform Detection Assay (FELUDA)?

প্রথমে এথিক্যাল ক্লিয়ারেন্স নেওয়ার পরে Real Patient Sample এ Test করা হয়েছে এবং বাঙালী দুই বিজ্ঞানীদের দাবি তারা খুবই আশাবাদী রেজাল্ট পেয়েছেন।

যাতে কিট হিসাবে মার্কেটে ছাড়া যায় তা নিয়ে আবেদন করা করা হবে। মনে করা হচ্ছে আগামী দুই থেকে তিন সপ্তাহের মধ্যে প্রোসেস গুলি সম্পূর্ণ করা যাবে। তারপরে কোনো কোম্পানী দ্বারা এই কিট বাজারে আসতে পারবে। WHO প্রথম থেকেই জানিয়ে যে, করোনা আটকাতে সব থেকে বড় প্রয়োজন হল টেস্ট। আর সেই টেস্ট করতে সময় লাগছে বহু দিন। এই প্রেক্ষা যদি এই দুই বাঙালী বিজ্ঞানীর কিট সফলতা পায় তাহলে আরো দ্রুত পরীক্ষা করে জানা যাবে, করোনা আক্রান্ত কেউ হয়ে কিনা। তাহলে এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x
Translate »