সার্জিকাল মাস্ক সংক্রমণ আটকে কতটা সক্ষম জেনে নিন আসল তথ্য

সার্জিকাল মাস্ক করোনা সংক্রমণ আটকে কতটা সক্ষম

সার্জিকাল মাস্ক পড়াটা এখন একটি বাধা ধরা নিয়মের মধ্যে পড়ে গেছে। সাধারণ মানুষ এই মহামারি কে আটকে এবং প্রতিরোধ করতে নিয়মিত জনবহুল এলাকায় সার্জিকাল মাস্ক সহ আরো নানা ধরনের মাস্ক ব্যবহার করছে। কিন্তু সকলের মনের মধ্যে প্রশ্ন জাগছে সার্জিকাল মাস্ক পরে কতটা এবং কি ভাবে সংক্রমণ রোধ করা যেতে পারে। এই নিয়ে একটি সমীক্ষা তুলে ধরা হল এই আর্টিক্যালের মাধ্যমে। 

খুব সম্প্রতি,জার্মানির একটি গবেষণার দাবি,একটি সাধারণ সার্জিকাল মাস্ক ঠেকাতে সক্ষম করোনা ভাইরাস (COVID-19)। জার্মানী বিজ্ঞানীদের (Germany) করা একটি সমীক্ষাতে তথ্য প্রকাশ হয়েছে। দেশজোড়া মানুষ করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের (Covid 19 second wave) বাড় বাড়ন্তে আতঙ্কিত । তাই মাস্ক (Mask) পরা এখন সকলের জন্য বাধ্যতামূলক হয়ে দাঁড়িয়েছে।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের (Covid 19 second wave) দাপটে সারা দেশ এখন তোলপাড়। মাস্ক (Mask) পরা এখন সকলের জন্য বাধ্যতামূলক এবং অতিপ্রয়োজনীয়। করোনা থেকে বাঁচতে পেতে ডবল সার্জিক্যাল মাস্ক নাকি এন৯৫ নাকি একসঙ্গে দুটো মাস্ক, এই নিয়ে নানা জল্পনা ও মতভেদ আছে।

 সার্জিকাল মাস্ক সংক্রমণ আটকে কতটা সক্ষম জেনে নিন আসল তথ্য

গবেষণার দাবি , সাধারণ সার্জিকাল মাস্ক ঠেকাতে সক্ষম করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ । জার্মানির সেই সমীক্ষায় তা প্রমানিত । তবে, যেসমস্ত জায়গায় ভীড় বেশি অর্থাৎ বায়ুবাহিত সংক্রমণের থাকার সম্ভাবনা অত্যন্ত বেশি, সেখানে অন্য মাস্কের বদলে N95 মাস্ক (mask) ব্যবহার করাই ভালো। সমীক্ষার দাবি, এতে সংক্রমণ আটকানোর কার্যকারিতা অন্যান্য মাস্কের থেকে অনেক বেশি। এই গবেষণাটি প্রকাশিত হয়েছে ‘সায়েন্স’ জার্নালে।

ওই সমীক্ষায় জানা যায় যে, কোন মাস্ক কোন কোন পরিস্থিতিতে কাজ করতে পারে। গভীর পর্যবেক্ষণের পর পাওয়া সমীক্ষায় পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয় বিজ্ঞানীরা । জার্মানিতে অবস্থিত ম্যাক্স প্ল্যাঙ্ক ইনস্টিটিউট ফর কেমিস্ট্রির (Max Planck Institute for Chemistry) ইয়াফাং চেং (Yafang Cheng) একটি বিবৃতি জারি করেছেন যে , SARS-CoV-2 এর বায়ুবাহিত সংক্রমণের সময় শ্বাস-প্রশ্বাসের ক্ষেত্রে কণাগুলির মধ্যে অল্প পরিমাণে ভাইরাস থাকে। সেই ড্রপলেট থেকে মানুষকে সুরক্ষা দিতে একটা সার্জিকাল মাস্কই যথেষ্ট । সমীক্ষা থেকে এই তথ্যও জানা যায় যে যেখানে বেশি মাস্ক ব্যবহার হয়েছে সেখানে করোনাকে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব সম্পূর্ণ ভাবে হয়েছে। N95 বা FFP2-র মতো মাস্ক বায়ুবাহিত সংক্রমণ রুখতে সবচেয়ে বেশি উপকারী।

 সার্জিকাল মাস্ক সংক্রমণ আটকে কতটা সক্ষম জেনে নিন আসল তথ্য


সমীক্ষার সঙ্গে যুক্ত অন্য আরেকজন বিজ্ঞানী জানিয়েছেন, অন্যান্য প্রতিরক্ষামূলক ব্যবস্থার পাশাপাশি হাই এফিশিয়েন্সি মাস্ক পরলে হাসপাতাল, চিকিৎসা কেন্দ্র, বাজার-সহ বিভিন্ন জনবহুল এলাকায় যেখানে প্রবল ঝুঁকির সম্ভাবনা থাকে সেখানে সুরক্ষিত থাকা যায়। । SARS-CoV-2 সংক্রমণের বিরুদ্ধে প্রধান সতর্কতা অবলম্বন করতে সমর্থ মাস্ক।

 সার্জিকাল মাস্ক সংক্রমণ আটকে কতটা সক্ষম জেনে নিন আসল তথ্য

মাস্ক (mask) পরা নিয়ে বারংবার বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করছেন। ভারতে সংক্রমণ মাত্রাতিরিক্ত ভাবে বাড়লেও এখনও মোট জনসংখ্যার ৫০ শতাংশ মানুষ এখনো সঠিকভাবে মাস্ক (Mask) পরেন না।এদের মধ্যে ৬৪ শতাংশ মানুষ এমনভাবে মাস্ক পরেন যে তাদের নাক চাপাই পড়ে না। কিছুদিন আগে এমনটাই দাবি করেন দেশের স্বাস্থ্য মন্ত্রক (Union Health Ministry) । এবার প্রকাশ্যে এল জার্মানির এই সমীক্ষা। করোনার গ্রাস থেকে বাঁচতে প্রধান সবচেয়ে প্রয়োজনীয় এবং সবচেয়ে উপযোগী হলো মাস্ক তা এখানেও স্পষ্ট করে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীগন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x
Translate »