বিজেপিতে মুকুলপন্থীদের গুরুত্ব বাড়ছে, আদি নেতাদের ক্ষোভের মুখে দিলীপ

রাজ্য বিজেপিতে মুকুলপন্থীদের গুরুত্ব বাড়ছে ক্রমশ তাই নিয়ে দলের আদি নেতাদের ক্ষোভের মুখে দিলীপ ঘোষ তাহলে কি এদিকেও গোষ্ঠী তৈরী হচ্ছে ক্রমশ

বিশেষ প্রতিবেদন Sanjoy Saha রাজ্য বিজেপিতে মুকুলপন্থীদের গুরুত্ব বাড়ছে আর এদিকে একুশের বিধানসভা নির্বাচন যতই এগিয়ে আসছে ততই অন্তর্কলহের স্বর বেশি করে শোনা যাচ্ছে রাজ্য বিজেপির অন্দরমহল থেকে।

১৯ এর লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকেই বিজেপিতে তৃণমূল ত্যাগী নেতাদের যোগদান শুরু হয়েছিল এবং লোকসভা নির্বাচনে 18 টি আসনে বিজেপির জয়লাভের পর থেকে তৃণমূল নেতাদের ভিড় বিজেপিতে বেড়েই চলেছে

বিজেপিতে মুকুলপন্থীদের গুরুত্ব বাড়ছে, আদি নেতাদের ক্ষোভের মুখে দিলীপ

আর্থিক উন্নতি তে বাধা কাটানোর সহজ উপায় ঘরোয়া টোটকা

মুকুল রায়ের হাত ধরে তার অনুগামীরা বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন এবং তাদের অনেকেই আজ বিজেপি তে গুরুত্বপূর্ণ পদের অধিকারী হয়ে উঠেছেন।

আরে একে কেন্দ্র করেই বিজেপির অন্দরে অসন্তোষ দানা বেঁধেছে বলে জানা যাচ্ছে সূত্র মারফত। খুব স্বাভাবিক ভাবেই এই নব্য বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন দলের আদি নেতাকর্মীরা। এই সকল নেতাদের প্রশ্ন যদি নবাগতরাই সব পদ আগলে রাখেন তাহলে এতদিন ধরে দল করে তারা কী পেলেন!

বাড়ির নেগেটিভ শক্তি দূর করবেন কি করে জেনে নিন ঘরোয়া টোটকা

আদি বিজেপি নেতাদের অসন্তোষ আছড়ে পড়েছে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের দরবারে।বিক্ষুব্ধ আদি নেতারা দলের মধ্যে কোনঠাসা হয়ে তাদের যাবতীয় প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছেন সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং সাধারণ সম্পাদিকা লকেট চট্টোপাধ্যায়ের দিকে। এ সকল নেতাদের প্রশ্ন যে, তারা কি এভাবে দলের হয়ে খেটেই যাবেন এবং বিনিময়ে কিছুই পাবেন না?

বিজেপিতে মুকুলপন্থীদের গুরুত্ব বাড়ছে, আদি নেতাদের ক্ষোভের মুখে দিলীপ

সম্প্রতি বিজেপি রাজ্য সভাপতি এবং রাজ্য সাধারন সম্পাদিকা হুগলির একটি সভায় যোগ দিতে গেলে সেখানেই তাদের এ সকল প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়।

দিলীপ ও লকেটকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন বিজেপির নেতা কর্মীরা। তারা জানান যে, নিচু তলা থেকে শুরু করে উপর তলা পর্যন্ত সংগঠনে যে সমস্ত নেতা নেত্রীরা পদ পেয়েছেন এবং পাচ্ছেন তারা সকলেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন।

Monalisa কালো বিকিনিতে স্বামীর সাথে জলকেলিতে মগ্ন

অন্য দল থেকে আসা মাত্রই যেখানে এরা পুরস্কার পাচ্ছেন, সেখানে দিনরাত দল করে গেলেও কেন তারা যোগ্য সম্মান ও পুরস্কার দলের থেকে পাচ্ছেন না সে বিষয়ে অভিযোগ জানান বিজেপির নেতা কর্মীরা।

তারা আরো বলেন যে, যে সমস্ত তৃণমূল নেতাকর্মীরা একসময় তাদের ওপর আক্রমণ চালিয়েছিল আজ তারাই বিজেপি তে নাম লিখিয়ে রাতারাতি নেতা হয়ে যাচ্ছেন।এভাবে দিলীপ ঘোষের সামনেই তৃণমূল থেকে আসা নেতাদের বিভিন্ন পদ থেকে সরানোর দাবি তোলেন বিক্ষোভকারীরা।

বিজেপিতে মুকুলপন্থীদের গুরুত্ব বাড়ছে, আদি নেতাদের ক্ষোভের মুখে দিলীপ

নিশ্চিত হবে এই ঘটনায় ঘর অস্বস্তিতে পড়েছে এ বিজেপি। যদিও প্রকাশ্যে দল এ ধরনের বিক্ষোভকে আমল দিতে চাইছে না। বিজেপির জেলা সভাপতি গৌতম চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন যে যারা বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন তারা কেউই বিজেপির নন এবং তারা সকলেই ছিল তৃণমূলের লোক।

বিজেপিতে মুকুলপন্থীদের গুরুত্ব বাড়ছে, আদি নেতাদের ক্ষোভের মুখে দিলীপ

রুহুল নেতাদের উস্কানিতেই এই বিক্ষোভ প্রদর্শন করা হয়েছিল বলে দাবি করেন তিনি। বিধানসভা নির্বাচনের আগে তৃণমূলের পক্ষ থেকে এভাবে তাদের হেয় করার জন্য চক্রান্ত করা হচ্ছে বলে অভিযোগ জানান বিজেপির জেলা সভাপতি। যদিও এ ধরনের যাবতীয় অভিযোগ সম্পূর্ণভাবে নস্যাৎ করে দেওয়া হয়েছে তৃণমূল নেতৃত্বের পক্ষ থেকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x
Translate »