কাপড়ের মাস্ক সার্জিক্যাল মাস্ক কোনটা বেশী ভালো ও নিরাপদ

করোনা প্রকোপ থেকে রক্ষা পেতে কোন ধরনের মাস্ক বেশী নিরাপদ জেনে নিন

কাপড়ের মাস্ক সার্জিক্যাল মাস্ক -করোনা ভাইরাসের দাপটে মাস্ক এখন নিত্য অতিপ্রয়োজনীয় পণ্য। মাস্ক ছাড়া বাড়ির বাইরে এক পাও না রাখা যাবে না । সম্ভব হলে বাড়ির মধ্যেও মাস্ক পরে থাকার কথা বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

কিন্তু কোন মাস্ক ? কাপড়ের মাস্ক না সার্জিক্যাল মাস্ক? করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে কোনটা বেশি ভাল ? এ নিয়ে এখনও জল্পনা রয়েছে সাধারণ মানুষের মধ্যে। অনেকেই কাপড়ের মাস্ক ব্যবহারে বেশি স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করছেন।

কাপড়ের মাস্ক সার্জিক্যাল মাস্ক কোনটা বেশী ভালো ও নিরাপদ

করোনার গ্রাস থেকে বাঁচতে প্রথম থেকেই কাপড়ের মাস্ক সার্জিক্যাল মাস্ক ও স্যানিটাইজারের উপর জোর দিয়ে আসছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সার্জিকাল মাস্ক এক বার পরার পরই ফেলে দিতে হচ্ছে, কিন্তু কাপড়ের মাস্ক পুনর্ব্যবহারযোগ্য বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা । এর জন্য বিশেষ কিছু সতর্কতা মানতে হবে। জেনে নিন সে সম্পর্কে এই আর্টিকেল থেকে।

কোভিড ভ্যাকসিন কারা নিতে পারবেন এবং কারা নয় জেনে নিন বিস্তারিত

কখন সার্জিকাল মাস্ক পরবেন 
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা-র মতে, করোনার লক্ষণ আছে এমন ব্যক্তিরা, স্বাস্থ্যকর্মী এবং করোনা রোগীদের যারা দেখভাল করছেন, তাদের সার্জিকাল মাস্ক পরতে হবে। যেসব এলাকায় সংক্রমণ দ্রুত ছড়াচ্ছে, সেখানে সার্জিকাল মাস্ক পরা দরকার । ৬০ বছরের বেশি বয়সীদের সার্জিকাল মাস্ক পরতে হবে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা-র পরামর্শ

যারা করোনায় আক্রান্ত নন বা যাদের মধ্যে সংক্রমণের কোনও লক্ষণ নেই, তারা ফ্যাব্রিক বা কাপড়ের মাস্ক ব্যবহার করবেন। আগেও থ্রি লেয়ার কাপড়ের মাস্কের উপর গুরত্ব দিয়েছিল WHO। মাস্কের ভিতরের দিকে যে অংশটা থাকবে, তাতে সুতির কাপড় থাকলে ভাল, কারণ তা মুখ থেকে নির্গত ড্রপলেটস দ্রুত শুষে নেয়। মাঝের স্তরে পলিপ্রোলাইন থাকবে, যা ফিল্টারের কাজ করবে।

আর্থিক উন্নতি তে বাধা কাটানোর সহজ উপায় ঘরোয়া টোটকা

আর বাইরের স্তরে পলিয়েস্টারের মতো জিনিস থাকলে মুখের ভিতর থেকে সংক্রমণ বাইরে ছড়াবে না এবং

কাপড়ের মাস্ক সার্জিক্যাল মাস্ক কোনটা বেশী ভালো ও নিরাপদ

 বাইরে থেকেও সংক্রমণ ভিতরে প্রবেশ করতে দেবে না। তবে কাপড়ের মাস্ক পরার ক্ষেত্রে বিশেষ কিছু সতর্কতা মেনে চলার পরামর্শ জারি করেছে WHO
দেখে নেওয়া যাক সেগুলো কী কী

১) মাস্ক খোলা পড়ার সময়ে 

যেকোনও সময় মাস্কে হাত দেওয়ার আগে ভাল করে হাত ধুয়ে নিন। মাস্কের কোথাও যাতে ছিদ্র না থাকে, তা দেখে নিন ভাল করে। ময়লা মাস্ক পরবেন না।

২) মাস্ক পরার পর যাতে দু’পাশে ফাঁক না থাকে, সেদিকে খেয়াল রাখবেন। মুখ, নাক ও থুতনি সম্পূর্ণ ঢাকা থাকতেই হবে।

৩) WHO এর পরামর্শ অনুযায়ী

ঘন ঘন মাস্ক না ছোঁয়াই ভাল। যদি কোনও কারণে মাস্ক খুলতেই হয়, তাহলে কানের পাশে কিংবা মাথার পিছনে মাস্কের দড়ি ধরেই খুলতে বা পরতে হবে।

৪) মাস্ক খোলার পরে হাত ধুয়ে হবে।

৫) সাবান দিয়ে মাস্ক ধোবেন । কিন্তু দিনে একবার গরম জলে সাবান দিয়ে মাস্ক ধোওয়া উচিত।

৬) মাস্ক খোলার পর সাথে সাথে মুখের কাছ থেকে সরিয়ে নেবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x
Translate »