করোনা ভ্যাকসিন নেওয়ার পরেও কি ঝুঁকি থেকে যায় ? কি বলছেন চিকিৎসকরা

করোনা ভ্যাকসিন নেওয়ার পরেও কি সংক্রমনের ঝুঁকি থেকে যায় ? জেনে নিন বিস্তারিত 

করোনা ভ্যাকসিনএখন সারা দেশে করোনা র দ্বিতীয় ঢেউ চলছে, কিন্তু এই সময় বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের ধাক্কাতে খুবই শোচনীয় অবস্থা। করোনা থেকে বাঁচতে বিশ্বজুড়ে ভ্যাকসিনেশন ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। বিশেষজ্ঞদের কথায়, করোনার বিরুদ্ধে ভ্যাকসিন একমাত্র মূল অস্ত্র। কিন্তু এরপরেও অনেক প্রশ্ন আসে যে, এইসব ভ্যাকসিন করোনা প্রতিরোধের ক্ষেত্রে কতটা কার্যকরী? ভ্যাকসিনেটেড ব্যক্তির থেকেও কি অন্যদের মধ্যে সংক্রমণ ছড়াবে ? যদি ছড়ায় তাহলে তার কেমন তীব্রতা ? সবিস্তারে জেনে নিন নীচের এই আর্টিকেল থেকে। 

সার্জিকাল মাস্ক সংক্রমণ আটকে কতটা সক্ষম জেনে নিন আসল তথ্য

ভ্যাকসিন এর কার্যকারিতা কতটা এই মুহুর্তে ?

অনুমোদিত করোনা ভ্যাকসিন গুলি এই করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শক্তিশালী করে তোলে, এমনটাই জানা গিয়েছে গবেষণায়। বেশিরভাগ ব্যক্তি যারা ভ্যাকসিন নিয়েছেন তাদের মধ্যে সংক্রমণের তীব্রতা যথেষ্টই কম । ফলে হাসপাতলে ভর্তির ঝুঁকি অনেকটাই কমছে। তবে ভ্যাকসিন নেওয়া ব্যক্তিদের অন্যদের মধ্যে সংক্রমণ ছড়ানোর সম্ভবনা আছে ।

করোনা ভ্যাকসিন নেওয়ার পরেও কি ঝুঁকি থেকে যায় ? কি বলছেন চিকিৎসকরা

যদিও এনিয়ে এখন বিজ্ঞানীরা গবেষণা চালাচ্ছেন । ভ্যাকসিনের উপর নির্ভর করে সংক্রমণ ছড়ানো বিষয়ের ওপর গবেষণায় দেখা গেছে যে, পুরো সংক্রমণ ঠেকাতে না পারলেও করোনার ভ্যাকসিনগুলি সংক্রমণকে কিছুটা কমাতে সক্ষম। ভ্যাকসিন সংক্রমণ আটকাতে কতটা কার্যকরী , তার উপর অনেক কিছুই নির্ভরশীল। বিভিন্ন ভ্যাকসিনের কাজ বিভিন্ন।

থাইরয়েডের সমস্যা কে নিয়ন্ত্রন করবেন কি ভাবে ঘরোয়া উপায় জেনে নিন

যেমন – কিছু ভ্যাকসিন মাঝারি থেকে গুরুতর সংক্রমণ হ্রাস করতে কার্যকরী। আবার কিছু ভ্যাকসিন সম্পূর্ণভাবে সংক্রমণ আটকাতে সক্ষম। তাই, ভ্যাকসিন নেওয়ার পরেও কেউ করোনাতে আক্রান্ত হতে পারে বা অন্যদের মধ্যে সংক্রমণ ছড়ানোর সম্ভবনা , তা আপনি কী ভ্যাকসিন নিয়েছেন তার উপর অনেকটাই নির্ভরশীল।

করোনা ভ্যাকসিন নেওয়ার পরেও কি ঝুঁকি থেকে যায় ? কি বলছেন চিকিৎসকরা

ভাইরাসের বিভিন্ন ভেরিয়েন্টের উপর করোনা ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা

সমগ্র বিশ্বে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে , ভাইরাস নানান রূপে যেমন– কোনোটা অতি সংক্রামক আবার , পাশাপাশি অ্যান্টিবডির উপরেও প্রভাব ফেলতে সক্ষম । তাই ভ্যাকসিন গ্রহণকারী ব্যক্তিদের থেকে বাকিদের মধ্যে সংক্রমণ ছড়াতে পারে। যদিও এক্ষেত্রে সংক্রমণের ফলে মারাত্মকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ার সম্ভাবনাও কম, তাও সংক্রমণের ঝুঁকি কিন্তু যথেষ্ট বেশি।

ভ্যাকসিন নেওয়ার পরে আপনার কতটা ঝুঁকি থাকতে পারে 

এখনও পর্যন্ত ভ্যাকসিন যারা নেয়নি , এই মুহূর্তে যারা কোনোভাবে ভ্যাকসিন নিতে পারবেন না, বা যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা খুব কম এবং স্বাস্থ্য দুর্বল, তাদের ক্ষেত্রে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি অত্যন্ত বেশি। দীর্ঘস্থায়ী অসুস্থ এবং ভীষণভাবে কম ইমিউনিটি কিংবা কোনও অসুস্থতার জন্য যারা টিকা নিতে পারছেন না, অথবা যারা স্বেচ্ছায় টিকা নিতে চাইছেন না, ১৮ বছরের কম বয়সী , তাদের ক্ষেত্রেই সংক্রমণের ঝুঁকি সর্বোচ্চ।

আর্থিক উন্নতি তে বাধা কাটানোর সহজ উপায় ঘরোয়া টোটকা

এই অতিমারির বিরুদ্ধে লড়াই করার ক্ষেত্রে, ভ্যাকসিন মূল অস্ত্র হলেও এটি কোনও সম্পূর্ণ সমাধান নয়। মনে রাখবেন, ভ্যাকসিন কেবলমাত্র সংক্রমণের সম্ভাবনা রোধ করে। একেবারে ঝুঁকিমুক্ত করে দেয় না। তাই ভ্যাকসিন নেওয়ার পরেও, আগের মতন মাস্ক পরা-সহ করোনার সমস্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x
Translate »